২০২১নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস২৩০ টি থেকে ২৪০ টি আসনে জয়লাভ করবে দাবি অনুব্রত মন্ডলের - NATUN GATI

Sunday, December 8, 2019

Contact Us

২০২১নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস২৩০ টি থেকে ২৪০ টি আসনে জয়লাভ করবে দাবি অনুব্রত মন্ডলের

  • আজিম শেখ,নতুন গতি,বীরভূম:- ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনের ফল এখনি মুখে মুখে জানিয়ে দিলেন রাজ্যের তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডল। সম্প্রতি বীরভূমে তৃণমূল বুথ কমিটির মিটিং এর মাঝেই অনুব্রত মণ্ডল একথা জানালেন সদ্যসমাপ্ত তিন জেলায় উপ-নির্বাচনের পজিটিভ রেজাল্ট এর দরুন তৃণমূল নেতাকর্মীদের আত্মবিশ্বাস এখন চূড়ান্তে। সেই আত্মবিশ্বাসে ভর দিয়েই এদিন ভবিষ্যৎবাণী করে বসলেন তৃণমূল দলের কেষ্টা অর্থাৎ অনুব্রত মণ্ডল। লোকসভা নির্বাচনের পর উপনির্বাচনে ভাবা হয়েছিল রাজ্যে বিজেপি এবং তৃণমূলের মধ্যে একটা প্রেস্টিজ ফাইট হতে চলেছে। কিন্তু ভোটের রেজাল্ট বেরোলে দেখা গেল বিজেপি বহুলাংশে পিছিয়ে গেছে তৃণমূলের থেকে। উপনির্বাচনের রেজাল্ট এর উপর ভিত্তি করে এই রাজ্যের তৃণমূল দলের নেতা-কর্মীরা সামনের দিনের ভোটযুদ্ধে জোরদার লড়াই করতে চলেছে বলে মনে করা হচ্ছে।

গোটা বীরভূম জুড়ে তৃণমূলের বুথ কমিটির মিটিং চলছে। আলোচনা করে দেখা হচ্ছে, কোন জেলায় ভোট বেশি পাওয়া যেতে পারে, কোন জেলায় ভোট কম। ২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনের পরেই দলীয় নেতৃত্বের নির্দেশে এই পর্যালোচনা শিবির শুরু করা হয়েছে। প্রতিটি বিধানসভা ভিত্তিক সভাতে উপস্থিত থাকছেন তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডল। তিনি কর্মীদের মনোবল বাড়ানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। আর সেই জায়গা থেকেই ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনের ফল নিয়ে জোরালো গলায় ঘোষণা করলেন অনুব্রত মণ্ডল। এদিন অনুব্রত মণ্ডল পরিষ্কার করে সাংবাদিকদের সামনে বলে দিলেন ২০২১ এর বিধানসভা ভোটে তৃণমূল ২৩০ টি থেকে ২৪০ টি আসনে জয়লাভ করবে।

এদিন বীরভূমের বুথ কমিটির বৈঠক শেষ হয়েছে। সূত্রের খবর, এর পরেই শুরু হবে জেলাজুড়ে মহিলাদের নিয়ে ব্লক কমিটির বৈঠক। প্রসঙ্গত অনুব্রত মণ্ডল এই কথা শুধু সোমবার সাংবাদিক মাধ্যমে বলেছেন তা নয়, বীরভূম জেলা জুড়ে প্রচারে বেরিয়ে অনুব্রত মণ্ডল কর্মীদের মনোবল বাড়ানোর উদ্দেশ্যে একই কথা বলে আসছেন বহুদিন ধরেই। অনুব্রত মণ্ডল উপ-নির্বাচনের ফল নিয়ে জানিয়েছেন, তিনটি বিধানসভা উপনির্বাচন হোক কিংবা ২৯৪ টি আসনে নির্বাচন হোক তৃণমূল জেতার জন্য প্রস্তুত। মানুষ ভোট দেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নে সাড়া দিয়ে। মানুষ মুখ্যমন্ত্রীর পাশে দাঁড়াবেন।

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, উপ-নির্বাচনের ফল যথেষ্ট আশানুরূপ হওয়ায় তৃণমূল কর্মীদের মনোবল অনেকাংশে ফিরে এসেছে। প্রসঙ্গত ২০১৯ এর লোকসভা ভোটে তৃণমূল কংগ্রেস রীতিমতো কোণঠাসা অবস্থায় নির্বাচন জিতেছিল। সে জায়গায় দাঁড়িয়ে তিনটি রাজ্যের বিধানসভা উপনির্বাচন তৃণমূলকে খাদের ধারে থেকে ফিরিয়ে আনলো। আর এ ব্যাপারে রাজনৈতিক মহলের একাংশ মনে করছেন, তৃণমূল দলের এহেন ভোলবদল ঘটিয়েছেন যিনি, তিনি হলেন ভোট বিশেষজ্ঞ প্রশান্ত কিশোর। আপাতত ২০২১ এর নির্বাচনের দিকে লক্ষ্য রেখে রাজ্যের সবকটি রাজনৈতিক দল প্রস্তুত হচ্ছে নির্বাচনী লড়াইয়ে নামার জন্য। সম্পূর্ণ পরিস্থিতির দিকে নজর রাখবে রাজ্যের ওয়াকিবহাল মহল।

Facebook Comments
error: Content is protected !!